শিরোনাম:
পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে ঈদের দিন সাবেক পরকীয়া প্রেমিকের হাতে নিহত হয়েছেন শাহনাজ পারভীন নামে এক গৃহিণী। পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা নূরে আলম। পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা সাওন চৌধুরী গভীর রাতে দরজায় কড়া নাড়লেন প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী, দিলেন ঈদের উপহার পাটগ্রাম উপজেলা বাসিকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ওসি আবু সাইদ চৌধুরী গোপালগঞ্জে বড়ফা গ্রামের টাইলস মিস্ত্রী খুন চট্টগ্রামের অর্ধশতাধিক গ্রামে ঈদ কাল গোপালগঞ্জে ঈদুল ফিতরের নামাজের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সারা দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সাংবাদিক চট্টগ্রামে বখাটে মতিনের অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকায়বাসী

রূপগঞ্জে ইস্পাত কারখানায় দগ্ধ আরও ২ জনের মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক:
  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ৫ মে, ২০২৩
26.8kভিজিটর

রূপগঞ্জে ইস্পাত কারখানায় দগ্ধ আরও ২ জনের মৃত্যু

রনি আহম্মেদ, স্টাফ রিপোর্টার : রূপগঞ্জে রহিমা ইস্পাত কমপ্লেক্স লিমিটেড কারখানার গলিত আগুনে দগ্ধ আরও ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শেখ হাসিনা বার্ণ ও প্লাষ্টিক সার্জারি ইনষ্টিটিউটে চিকিৎসারত অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়।

নিহতরা হলেন ইলিয়াস (৩৫)। সে কিশোরগঞ্জ জেলার ইটনা থানার মৃধা বাড়ি এলাকার মোঃ ফজর আলী মিয়ার ছেলে। নিয়ন (২০)। তার পিতার নাম আহম্মদ। তার বাড়ি রাজবাড়ি জেলার রমকান্তপুর এলাকায়।

চুল্লি বিস্ফোরনের ঘটনায় এ পর্যন্ত ৩ জনের মৃত্যু হয়। বাকি ৪ জনের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানিয়েছে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক।
গত ৪ মে বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ৩ টার দিকে উপজেলার সাওঘাট এলাকাস্থ রহিমা ইন্ডাষ্ট্রিয়াল কমপ্লেক্স লিমিটেডে চুল্লি বিস্ফোরণ হয়।

এতে ৭ শ্রমিক আগুনে ঝলসে যায়। আহতদের উদ্ধার করে দ্রুত শেখ হাসিনা বার্ণ ও প্লাষ্টিক সার্জারি ইনষ্টিটিউটে ভর্তি করা হলে শংকর নামের এক শ্রমিককে মৃত ঘোষনা করেন চিকিৎসক। পরে চিকিৎসারত অবস্থায় গতকাল ভোরে ইলিয়াস ও নিয়ন নামের আরও দুই শ্রমিক মারা যায়।


গত ছয় মাস যাবৎ কারখানায় লোহা উৎপাদন শুরু হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস বলছে যেখানে দূর্ঘটনা ঘটেছে সেখানে তারা কোন অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা দেখতে পাননি। শ্রমিকরা নিরাপত্তা সরজ্ঞাম ব্যবহার করেনি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শ্রমিক বলেন, কারখানায় ডিউটিরত অবস্থায় তাদের কোন নিরাপত্তা পোষাক দেয়া হয়না। একপ্রকার মৃতে্যুর ঝুকিঁ নিয়েই তারা সেখানে কাজ করে যাচ্ছে।


শেখ হাসিনা বার্ণ ও প্লাষ্টিক সার্জারি ইনষ্টিটিউটের আবাসিক সার্জন এসএস আইয়ুব হোসেন বলেন, দগ্ধ ৭ জসের মধ্যে ৩ জন মারা গেছে। বাকি ৪ জনের অবস্থা আশংকাজন। তাদের মধ্যে রাব্বির শরীরে ৯৮ শতাংশ, জুয়েলের শরীরে ৯৫ শতাংশ, আলমগীরের শরীরে ৯০ শতাংশ ও ইব্রাহিমের শরীরে ২৮ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর
কপিরাইট ©২০০০-২০২২, WsbNews24.com এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Desing & Developed BY ServerNeed.Com
themesbazarwsbnews25
x