শিরোনাম:
বোয়ালখালীতে নবনিযুক্ত ১৪ জন স্বাস্থ্য সহকারীদের বরণ অনুষ্ঠান সম্পুন্ন গোপালগঞ্জে টুঙ্গিপাড়ায় চাঁদা আদায় করতে গিয়ে জনতার হাতে আটক -০১ চট্টগ্রামে সীমানা গুলোই সস্ত্রাসীদের নীরব আস্তানা : প্রশাসন নিরব চট্টগ্রামে এক ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার সাংবাদিক জুয়েল খন্দকারের বিরুদ্ধে কাউন্সিলর সাহেদ ইকবাল বাবুর মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রতিবাদ সভা অনুষ্টিত চাঁদার দাবিতে হাবিববাহিনীর হামলায় আহত ১, এলাকাবাসীর ঝাড়ু মিছিল সদ্য যোগদানকৃত রেঞ্জ ডিআইজির সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ কাশিয়ানির রাহুথড় উদয়ন বিদ্যাপিঠ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ অপসারণ কাশিয়ানীতে নকল পণ্যের ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান বোয়ালখালীতে গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে আহত ৫

(র‌্যাবের যৌথ অভিযানে) পলাতক জঙ্গি নেতা আরিফ হোসেন গ্রেপ্তার

সুবীর দাস নওগাঁ
  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ২৭ জুলাই, ২০২৩
52.1kভিজিটর

নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ (জেএমবি) এর শীর্য জঙ্গি নেতা এবং দাওয়াতি বিভাগের সক্রিয় সদস্য পরোয়ানাভুক্ত পলাতক আসামী মোঃ আরিফ হোসেন(২৭) কে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৫ জয়পুরহাট ও র‌্যাব-২ এর সদস্যরা ।

গ্রেপ্তারকৃত আরিফ নওগাঁ জেলার সাপাহার উপজেলার মধইল গ্রামের মোঃ ইমাম হোসেনের ছেলে এবং শীর্ষ জঙ্গি নেতা। বুধবার ২৬ জুলাই দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে র‌্যাব-৫ জয়পুরহাট থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়।

এর আগে এদিন দুপুরের দিকে র‌্যাবের যৌথ আভিযানিক দল সাপাহার উপজেলার নিজ গ্রাম মধইল এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ধৃত আরিফ হোসেনসহ নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবির অন্যান্য সহযোগী সদস্যরা গত ২০১৭ সালের ২২ জুলাই ঢাকার মোহাম্মাদপুর থানা এলাকায় নাশকতামূলক কর্মকান্ড ঘটানোর পরিকল্পনার জন্য গোপন বৈঠকে মিলিত হয়।

সেখানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিত টের পেয়ে আরিফ পালিয়ে গেলেও মোঃ সোহাইব শেখ এবং মোঃ রফিকুল ইসলাম ওরফে রফিক গ্রেপ্তার হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে বিদেশী পিস্তল, দুই রাউন্ড গুলি ভর্তি ম্যাগাজিন ও একটি ধারালো চাপাতি এবং নানা রকম উগ্রবাদী বই উদ্ধার করা হয়। এরপর মোহাম্মাদপুর থানায় একটি নিয়মিত মামলা রুজু হয়।

পরবর্তীতে গ্রেপ্তারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় সেখান থেকে বেশ কয়েকজন জেএমবির সদস্য পালিয়ে গিয়েছিলো। আর পলাতকদের মধ্যে আরিফ হোসেন একজন দূর্ধর্ষ জেএমবি নেতা। তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা আরিফকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করেন। এরপর জঙ্গী আরিফ জামিনের পেয়ে পলাতক হয়।

পরে সন্ত্রাস বিরোধী ট্রাইব্যুনাল আদালত আসামী আরিফের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা ইস্যু করেন। জামিন পেয়ে সে আইনশৃংঙ্খা বাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার এড়াতে বারবার অবস্থান পরিবর্তন করে আসছিল এবং জেএমবির কার্যক্রম গোপনে চালিয়ে যাচ্ছিল।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বিভিন্ন ধরনের অপরাধীদের গ্রেপ্তারের ক্ষেত্রে জোড়ালো ভূমিক পালন করে আসছে। তাই জঙ্গি আরিফ জামিন পেয়ে পলাতক হওয়ার পর থেকে র‌্যাব এর একটি আভিযানিক দল তাকে গ্রেপ্তারের কার্যক্রম অব্যাহত রাখে।

এরই ধারাবাহিকতায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৫, জয়পুরহাট ক্যাম্প ও র‌্যাব-২এর বিশেষ আভিযানিক দল তার অবস্থান সনাক্ত করে। এরপর টানা ২ দিনের রুদ্ধশ্বাস অভিযান পরিচালনা শেষে বুধবার ২৬জুলাই দুপুরের দিকে উপজেলার মধইল এলাকা হতে আরিফ হোসেনকে গ্রেপ্তার করে।

এছাড়া তার সহযোগী জেএমবির অন্যান্য সদস্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে বলেও জানানো হয় প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে। গ্রেপ্তারকৃত আসামীকে যথাযথ আইনি প্রক্রিয়ায় সাপাহার থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) হাবিবুর রহমান মুঠোফোনে বলেন, আসামী আরিফ হোসেনকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর
কপিরাইট ©২০০০-২০২২, WsbNews24.com এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Desing & Developed BY ServerNeed.Com
themesbazarwsbnews25
x