শিরোনাম:
নওগাঁ জেলার আওয়ামীলীগ নেতার বিরুদ্ধে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জমি গ্রহনের অভিযোগ এর প্রতিবাদ সভা নওগাঁর রাণীনগরে ট্রাকের ধাক্কায় মটরসাইকেল চালক নিহত; আহত একজন রূপগঞ্জে মসজিদের বারান্দা থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার রংপুরের হারাগাছে শামীম গুল ফ্যাক্টরিতে অগ্নিকাণ্ড জামালপুরে নির্বাচনকে পেছাতে চালাকী করে মামলা- প্রতিবাদে মানববন্ধন রূপগঞ্জে কর্মহীন গরিব অসহায় বিধবা দুঃস্থদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন স্বপ্নের আলো ফাউন্ডেশন ঢাকা মহানগর টিম এর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত মরহুম অধ্যক্ষ এম এম নজরুল স্যারের ২৯তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত ঠাকুরগাঁওয়ে গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী হাঁস খেলা অনুষ্ঠিত স্বপ্নের আলো ফাউন্ডেশন সভাপতি রবিউল, সম্পাদক জাহিদ, সাংগঠনিক রাজু

গার্মেন্টস শ্রমিক থেকে মিজানের অভিনেতা হয়ে ওঠার গল্প

মো.নাঈম বিল্লাহ, আমতলী (বরগুনা):
  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২১

ছোট পর্দায় হাসিমাখা-মজাদার, দুষ্টুমি চরিত্রে অভিনয় করে চলচ্চিত্র জগতে যাত্রা শুরু হয় মিজানের। ছোটবেলা থেকেই তার স্বপ্ন ছিল টেলিভিশন কিংবা চলচ্চিত্র জগতে কাজ করার। এই ছোট স্বপ্নটি তখন থেকেই তাড়া করতে থাকে তাকে।

কিন্তু পারিবারিক অভাব-অনটন তার স্বপ্নের মাঝে অন্ধকার বয়ে আনছিল তখন আর মাত্র ছয় বছর বয়সে মাকে হারিয়ে মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েন মিজান। তবুও তিনি দমে যাননি, নিজের ছোট্ট এই স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দিতে পথ চলতে থাকেন। পারিবারিক অভাব-অনটন আর অল্প বয়সেই মাকে হারানোয় খুব একটা পড়াশোনা করতে পারেননি মিজান।

২০০৯ সালে মিজানের কর্মস্থল গার্মেন্টস পানাম গ্রুপ একটি শ্রমিক উৎসবের আয়োজন করে এবং সেই অনুষ্ঠানে জীবনের প্রথম মঞ্চে একটি নাটকের অভিনয় করেন তিনি। মঞ্চ নাটকে তার অসাধারণ অভিনয় অনুষ্ঠানে থাকা সকল মানুষের দৃষ্টি কাড়ে এবং তিনি সেরা নাট্য অভিনেতা হিসেবে পানাম গ্রুপ কর্তৃক পুরস্কার পেয়েছিলেন।

তারপর থেকে পানাম গ্রুপের সকল অনুষ্ঠানে অভিনয় এবং মঞ্চ মাতানোর সুযোগ হয় তার। এর ধারাবাহিকতায় বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অভিনয় দিয়ে পারফর্ম করতে থাকেন মিজান। এভাবেই তার জনপ্রিয়তা দিন দিন বাড়তে থাকে।

এসবের পরও মিজানের একটাই ইচ্ছে ‘যদি টেলিভিশন নাটকে কাজ করতে পারতাম বড় বড় অভিনেতাদের সাথে’। এই ইচ্ছে নিয়ে অনেক পরিচালকদের দ্বারে দ্বারে ঘুরতে থাকে তিনি এবং অনুরোধ করেন তাকে যেন টিভি নাটকে সুযোগ দেয়া হয়। কে শোনে কার কথা? তাকে তুচ্ছ ভেবে এড়িয়ে চলেন অনেক পরিচালক, টেলিভিশন কর্মীরা।

কিন্তু হঠাৎ একদিন পরিচালক ও প্রযোজক আজিম উদ্দিন আজিম খান একুশে টিভির বিশেষ ধারাবাহিক নাটক ‘হট্টগোলের সমাধান’ নাটকে অভিনয় করার সুযোগ করে দেন তাকে। এই নাটকটির মাধ্যমেই মিজানের টেলিভিশন নাটকে অভিনেতা হিসেবে যাত্রা শুরু হয়। এর পর আর মিজানকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি, একে একে একাধিক নাটকে অভিনয় করে দর্শকদের আস্থা জায়গা গড়ে তুলেন তিনি।

মিজানের অভিনীত টেলিভিশন নাটকের সংখ্যা প্রায় ১৫টি। এর মধ্যে তার অভিনীত নাটক ‘হট্টগোলের সমাধান’, ‘আজব রঙ্গের মানুষ’, ‘ফাইস্যা গেছি মাইনকার চিপায়’, ‘নায়িকা’, ‘প্রবাসীর জীবন’, ‘ডিস্টার্ব হাসবেন্ড’, ‘সাধু সাবধান’, ‘পালাবি কোথায়’, ‘আবির ভাই এর মাথা গরম’, ‘লায়েকের বউ’ অন্যতম। এই নাটকগুলোতে তার অভিনয় ছিল দারুণ।

অভিনয় জগতে আসা প্রসঙ্গে মিজান বলেন, ‘আজিম ভাই আমাকে তার শর্টফিল্ম এবং টিভি নাটকে প্রথম অভিনয় করার সুযোগ করে দেন, এ জন্য আমি তার কাছে কৃতজ্ঞ, তিনি না হলে হয়তো আমার টিভি নাটকে অভিনয় করার স্বপ্নটা পূরণ হতো না’।

‘পরিচালক জুয়েল হাসান ভাই এবং জয় সরকার ভাইয়ের একাধিক নাটকে অভিনয় করে আমি দর্শকদের মাঝে ভালোবাসার জায়গা পেয়েছি, তারা সবসময় আমাকে যেকোন নাটকে অভিনয় করার জন্য বলেন, এছাড়া আমার অভিনয় জগতে পথচলার অন্যতম অবদান রয়েছে এ দু’জন মানুষের’।

তিনি আরও বলেন, ‘আমি টিভি নাটকে অভিনয়ের প্রথম থেকেই ভক্তদের কাছ থেকে ভালো সাড়া পেয়েছি এবং আমার কর্মস্থল পানাম গ্রুপের এমডি স্যার, আমার বন্ধুবান্ধব, পরিচালক, সহকর্মীরা আমাকে অনেক ভালোবাসেন এবং তারা সবসময় আমাকে সামনে আরও ভালো করার অনুপ্রেরণা জোগান। আর এটাই আমার কাছে সবচেয়ে বড় পাওয়া, আমি আগামীর দিনগুলোতে নিজের সর্বোচ্চ চেষ্টা আর মেধা দিয়ে প্রতিটি কাজকে আপন করে নিতে চাই এবং আমার সকলের কাছে একটিই চাওয়া আমার জন্য দোয়া৷

এই বিভাগের আরও খবর
কপিরাইট ©২০০০-২০২০, WsbNews24.com এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Desing & Developed BY ServerNeed.Com
themesbazarwsbnews25
x