শিরোনাম:
নওগাঁ জেলার আওয়ামীলীগ নেতার বিরুদ্ধে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জমি গ্রহনের অভিযোগ এর প্রতিবাদ সভা নওগাঁর রাণীনগরে ট্রাকের ধাক্কায় মটরসাইকেল চালক নিহত; আহত একজন রূপগঞ্জে মসজিদের বারান্দা থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার রংপুরের হারাগাছে শামীম গুল ফ্যাক্টরিতে অগ্নিকাণ্ড জামালপুরে নির্বাচনকে পেছাতে চালাকী করে মামলা- প্রতিবাদে মানববন্ধন রূপগঞ্জে কর্মহীন গরিব অসহায় বিধবা দুঃস্থদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন স্বপ্নের আলো ফাউন্ডেশন ঢাকা মহানগর টিম এর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত মরহুম অধ্যক্ষ এম এম নজরুল স্যারের ২৯তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত ঠাকুরগাঁওয়ে গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী হাঁস খেলা অনুষ্ঠিত স্বপ্নের আলো ফাউন্ডেশন সভাপতি রবিউল, সম্পাদক জাহিদ, সাংগঠনিক রাজু

ধামাকা শপিংএর বিরুদ্ধে সিআইডির মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২১

সম্প্রতি কথিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ‘ধামাকা শপিং’ এর নামে গ্রাহকদের কাছ থেকে ৮০৩ কোটি ৫১ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে ইনভেরিয়েন্ট টেলিকম বাংলাদেশ লিমিটেড। এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটির ছয় কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গতকাল মানি লন্ডারিংয়ের মামলা করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

এবিষয়ে সিআইডি বলছে, ‘ইনভেরিয়েন্ট টেলিকম বাংলাদেশ লিমিটেড’ এর নামে ট্রেড লাইসেন্স নিয়ে অবৈধভাবে ‘ধামাকা শপিং’ এর ই-কমার্স চলছিল। বিভিন্ন পণ্যের লোভনীয় অফার ও সিগনেচার কার্ড বিক্রির প্রলোভন দেখিয়ে প্রায় ৫ লাখ গ্রাহকের কাছ থেকে ৮০০ কোটির বেশি টাকা হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে।

প্রায় দুই মাসের অনুসন্ধান শেষে গতকাল রাজধানীর বনানী থানায় ইনভেরিয়েন্ট টেলিকমের এমডিসহ ছয় কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং আইনে মামলা করা হয়েছে। মামলা নম্বর-১৬। আসামিরা হলেন, ইনভেরিয়েন্ট টেলিকমের এমডি জসিম উদ্দিন চিশতী, তার স্ত্রী সাইদা রোকসানা খানম, দুই ছেলে তাশফির রিদওয়ান চিশতী ও মাসফিক রিদওয়ান চিশতী, ভাই নাজিম উদ্দিন আসিফ এবং ইনভেরিয়েন্টের পরিচালক (অপারেশন) সাফওয়ান আহমেদ। সিআইডির অনুসন্ধানে দেখা যায়, ২০১৫ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি থেকে ডেভেলপমেন্ট, সফটওয়্যার, টেলিকম সিস্টেম, স্মার্টফোন, আইপি ফোন, ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার এবং কমিউনিকেশন আমদানি-রপ্তানির ব্যবসা করে আসছিল ইনভেরিয়েন্ট টেলিকম। গত বছরের অক্টোবরে ‘ধামাকা শপিং’ নামে অবৈধ ই-কমার্স ব্যবসা চালু করে প্রতিষ্ঠানটি। ১ অক্টোবর থেকে রাজধানীর মহাখালীর একোয়া টাওয়ারে ধামাকা শপিংয়ের নামে সাইট কিংবা অ্যাপসে গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা নেওয়া হয়। বিভিন্ন সময়ে অস্বাভাবিক স্বল্পমূল্যে মোটরসাইকেল, রেফ্রিজারেটর, টেলিভিশন, মোবাইলফোনসহ নানা পণ্যের প্রলোভন দেখিয়ে তিন ব্যাংকের অ্যাকাউন্টে ৮০৩ কোটি ৫১ লাখ ৯১ হাজার ৩৬৩ টাকা নেওয়া হয়েছে।

শুরুতে কিছু গ্রাহককে পণ্য দিয়ে আরও অনেককে আকৃষ্ট করে প্রতিষ্ঠানটি। এদের কেনা পণ্য সরবরাহ না করে প্রতারণা করেছে। এ ছাড়া প্রায় ৬০০ সরবরাহকারীর অন্তত ২০০ কোটি টাকার পণ্য নিয়েও কোনো মূল্য পরিশোধ করেনি।

জানতে চাইলে সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার (ফাইন্যানসিয়াল ক্রাইম) মো. হুমায়ুন কবির বলেন, আমরা ৮৯ কোটি টাকা লন্ডারের তথ্য পাওয়ার পরই ধামাকার বিষয়ে অনুসন্ধান শুরু করি। লন্ডারকৃত টাকার পরিমাণ আরও বাড়তে পারে।
সূত্রঃ বিডিপি

এই বিভাগের আরও খবর
কপিরাইট ©২০০০-২০২০, WsbNews24.com এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Desing & Developed BY ServerNeed.Com
themesbazarwsbnews25
x