শিরোনাম:
হাটহাজারীতে ইউপি নির্বাচনে নৌকার ৮ জন ও স্বতন্ত্র ৫ জন বিজয়ী চাটমোহরে ইউপি নির্বাচনে আ’লীগের ৭, স্বতন্ত্র ৪ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হাতীবান্ধার সানিয়াজানে রাস্তা নির্মাণে নবতরী বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন’র আর্থিক সহায়তা প্রদান ঝালকাঠিতে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সরকারি গাছ বিক্রয়ের অভিযোগ ঝালকাঠিতে ১০০ টাকায় ১৪ তরুণ-তরুণীর পুলিশে চাকরীমো. কুতুবপুর ইউপি নির্বাচনে সেলিম রেজা বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত। সুন্দরগঞ্জে ভোটকেন্দ্রে হামলা, ব্যালট পেপার ছিনতাই সিরাজগঞ্জে ভোটের তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে আহত ২ সাংবাদিক গোটা দেশের মানুষ জান মালের নিরাপত্তা সহ সুখে শান্তিতে বসবাস করতেছেন-বজলুল হক হারুন এমপি বোয়ালমারীতে মাদ্রাসার ছাত্রদের উপর হামলা, থানায় অভিযোগ

ঠাকুরগাঁওয়ে চশমা প্রতীকের সংবাদ সম্মেলন মারধরের অভিযোগ

মোঃ আল আমিন নিজস্ব প্রতিবেদক (ঠাকুরগাঁও)
  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২১
সংবাদ সম্মেলন মারধরের অভিযোগ

ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলায় তৃতীয় দফা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে স্বতন্ত্র চশমা মার্কার প্রার্থী ওসমর্থকদের উপর নৌকা মার্কার প্রার্থীর বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ উঠেছে।বুধবার (২৪ নভেম্বর) রাতে সেনগাঁও ইউনিয়নের কানারী গসাইপুর গ্রামের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মতিলাল রায় নির্বাচনী অফিসে সংবাদ সম্মেলনে এ সব অভিযোগ করেন।

চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী মতিলাল রায় (চশমা মার্কা) অভিযোগ করে বলেন, মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) রাতে নির্বাচনী প্রচারণার কাজে কানারি গশায়পুর গ্রামে গেলে নৌকা মার্কার প্রার্থীসহ ১০-১২ জন মোটর সাইকেল যোগে এসে আমার কর্মী সমর্থকদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায় এবং ভয়ভীতি প্রদর্শণ করে। আমার কর্মী গোপেশ চন্দ্র রায় (কেরকাই) হামলার শিকার হয়ে পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।তিনি আরও বলেন, আমার কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশ্যে ওই হামলাকারিরা হুমকি দিয়ে বলেন চশমা প্রতীকের প্রচারণায় অংশ নিলে তাদের দেখে নেওয়া হবে। এব্যাপারে পীরগঞ্জ রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবরে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।মতিলাল বলেন, আমি ইউপি নির্বাচনে চশমা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দিতা করছি।

যারা আমার কর্মীর উপর হামলা করেছে এবং ভয়-ভীতি দেখাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে প্রয়োজনিয় ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবি জানান তিনি। সেই সাথে তিনি ২৮ নভেম্বর নির্বাচনে সকল ভোট কেন্দ্রে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় সে জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেন।তিনি তার নির্বাচনী এলাকার ৭,৮ ও ৯ ভোট কেন্দ্রকে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ বলে মনে করছেন। তিনি কারন হিসেবে উল্লেখ করেন এই কেন্দ্র গুলো সংখ্যালঘু ভোটার বেশি।নাম প্রকাশে ওই গ্রামের একাধিক ভোটার বলেন বলেন নৌকা মার্কার প্রার্থী যে ভাবে সংখ্যালঘুদের ভয়-ভীতি প্রদর্শণ করছেন এই অবস্থায় আমার ভোট কেন্দ্রে যাওয়াটাই কঠিন। একজন নারী ভোটার বলেন এভাবে নৌকা মার্কার প্রার্থী আমাদের ভয়-ভীতি দেখাবেন, সেটা আমরা কখনই ভাবিনি।এলাকাবাসী জানান, আমার ভোট আমি যাকে ইচ্ছা তাকেই দিবো।

আমার যে প্রার্থী পছন্দ হবে আমি তাকেই দিবো। কেন আমাদের উপর এত অত্যাচার করছে আর আমাদের কেন বলবে যে এখানেই ভোট দিতে হবে আমাদের নিজস্ব একটা অধিকার আছে।এ ব্যাপারে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা মার্কা’র প্রার্থী মো: মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, অভিযোগটি সম্পূন্ন ভিত্তিহীন।

আমরা গত নির্বাচনে ৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করেছিলাম। এবারও ৬ জন করছি। ৬ জনের মধ্যে ৫ জন এক জোট হয়ে নৌকাকে ঠেকানোর জন্য এসব বানানো নাটক করছে। তিনি বিএনপি, জামাত শিবিরের আতাত করে এসকল কর্মকান্ড চালাচ্ছে। তারা মাদক ব্যবসায়ীদের সহায়তা করছে। সম্প্রদায়িক সম্প্রতি নষ্ট করার জন্য জামাত বিএনপির লোকেরা মতিলাল বাবুকে দিয়ে এ সব কাজ করছে।পীরগঞ্জ উপজেলা নিটার্নিং কর্মকর্তা তকদির আলী সরকার বলেন, এ ব্যাপারে আমার কাছে এখনো পর্যন্ত কোন অভিযোগ আসেনি।

এই বিভাগের আরও খবর
কপিরাইট ©২০০০-২০২০, WsbNews24.com এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Desing & Developed BY ServerNeed.Com
themesbazarwsbnews25
x