দ্বিতীয় বারের মতো ঝাউগড়ার চেয়ারম্যান হবার আশায় নৌকার মনোনয়ন সংগ্রহ করলেন আন্জুমনোয়ারা হেনা।

মেলান্দহ প্রতিনিধি।
  • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ৬ এপ্রিল, ২০২১
ঝাউগড়ার চেয়ারম্যান হবার আশায় নৌকার মনোনয়ন সংগ্রহ

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত একক প্রার্থী দলীয় মনোনয়নের জন্য ৬ এপ্রিল বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ জামালপুর জেলা শাখার বকুলতলাস্থ কার্যালয় হতে সকল সংগঠনের নেতাকর্মী ও জেলা যুব মহিলালীগ সহ নিয়ে ১০ নং ঝাউগড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন।

অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করার লক্ষে এবং আলহাজ মির্জা আজম এমপি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব ফারুক আহম্মেদ চৌধুরীর নির্দেশনা মোতাবেক কাজ করার লক্ষ্যে একজন সহযোদ্ধা হয়ে কাজ করার প্রয়াসে দ্বিতীয় বারের মতো চেয়ারম্যান হবার আশায় দলীয় মনোনয়ন ফরম কিনলেন জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আন্জুমনোয়ারা হেনা। তিনি জেলা মহিলালীগের সফল সভাপতি, ও বর্তমান সফল চেয়ারম্যান।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত ঝাউগড়া ইউনিয়ন পরিষদের পুনরায় চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থী হিসেবে মাঠে -ঘাটে,হাটে- বাজারে সবখানে আলোচনা ও জনপ্রিয়তায় এগিয়ে বতর্মান সরকার দলীয় একক চেয়ারম্যান মেলান্দহের দলীয় ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে সফলদের মধ্যে অন্যতম আন্জুমনোয়ারা হেনা। তিনি একক ভাবে দলীয় মনোনয়ন পেয়ে আবারও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান। তিনি বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী, একনিষ্ট কর্মী হিসেবে জামালপুর তথা মেলান্দহ উপজেলা রাজনীতিতে স্বক্রিয় হয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করতে গিয়ে বিভিন্ন কষ্ট ও দুঃসময় পার করেন।

জামালপুর জেলার মধ্যে আত্মী স্বজনসহ শতভাগ আওয়ামীপন্থী, পরিবার। চেয়ারম্যানের সফলতায় ইউনিয়নের দুর্গম এলাকা পর্যন্ত শতভাগ বিদ্যুৎয়ান, প্রায় সকল রাস্তা পাকা করণ এবং অনেকগুলি ব্রীজ কালর্ভাড তৈরি, মাদক, বাল্যবিবাহ, চুরি- ডাকাতি নির্মুলে সবসময় সোচ্চার থেকে মডেল ও উন্নত ইউনিয়নের নাগরিক সুবিধাসহ বিনামুল্যে ভিজিডিকার্ড, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধীভাতা ,দুর্যোগকালীন ত্রাণ সহায়তা, গ্রাম আদালতের মাধ্যমে ন্যায়পরায়ণ হয়ে অধিক বিরোধ মিমাংসা করে থানায় ও কোর্টে মামলা সংখ্যা কমানো,মসজিদ-মাদ্রাসায় সরকারী অনুদানের পাশাপাশি নিজেস্ব তহবিল থেকে উন্নয়ন করে ইউনিয়নবাসির ও নিজ দলীয় সর্বস্তরের লোকের ভালবাসা অর্জন ও এলাকার উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে তাকে আবারও চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় সকল শ্রেণি পেশার মানুষ। মেলান্দহ উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে তার সুনাম ভয়ে বেড়াচ্ছে আওয়ামীলীগ,যুবলীগ, মহিলালীগ,সহ সকল অংঙ্গ সংগঠন। ইউনিয়ন বাসি ও নেতাকর্মীদের মধ্যে উজ্জল নক্ষত্র।

তার সঠিক দিক নির্দেশনায় দলীয় সকল কর্ম সুষ্ট সুন্দর ভাবে পরিচালিত হচ্ছে। ঝাউগড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি,হাসানুজ্জামান মন্টু। সহ সভাপতি খাইরুল ইসলাম রুসো, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি, জাহাঙ্গীর আলম আফসারী, সহ নেতা কর্মিরা জানান, শেখ হাসিনা ও মির্জা আজম এমপির দেশ উন্নয়নের যে স্বপ্ন নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে সেই উন্নয়নের ধারা অব্যহতি রাখতে এবং দলীয় শৃঙ্খলা বহাল রাখতে

এ চেয়ারম্যানের বিকল্প নেই। তিনি আরও বলেন – আমি মানুষের সেবক হিসেবে দলীয় মনোনয়ন পেয়ে উপ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান হয়ে ৩ বছরের জন্য দায়িত্ব পেয়েছিলাম আমি চেষ্টা করেছি ইউনিয়নবাসীর সেবক হয়ে আমার দায়িত্ব যথাযথ পালন করতে।তবে এটা বলতে পারি আমার ধারায় কেউ হয়রানি বা কোন অসহায় মানুষ ফিরে যায়নি।আমরা কর্ম, ন্যায়পরায়ণ তিনি আরও বলেন আমি গরিব দুঃখী মানুষের পাশে আছি। চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়ে নৌকার সম্মানে এবং মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন বাস্তবায়ন কাজ করে যাবো ইনশাল্লাহ।

এই বিভাগের আরও খবর
কপিরাইট ©২০০০-২০২০, WsbNews24.com এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Desing & Developed BY ServerNeed.Com
themesbazarwsbnews25